কিভাবে-SEO-প্রজেক্ট-শুরু-করবেন

আপনি কি জানেন SEO শিখতে সবচেয়ে বড় প্রবলেম কোথায় আসে(কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন)? আসলে আমরা মতবাদ বা ব্যাখ্যা অনেক কিছুই পাই – হতে পারে ইউটিউব থেকে, কনটেন্ট পড়ে অথবা অনেক মানুষ আছে বলার জন্য। কিন্তু যখন রিয়েল লাইফের কথা হয় তখন কাজ কিভাবে করতে হবে এটি কেউ বলে না। আপনারাও আমার সাথে একমত হবেন যে প্রাকটিক্যাল নলেজ যতটা গুরুত্বপূর্ণ, ততটাই গুরুত্বপূর্ণ বেসিক নলেজ। আজকে আমি এই কনটেন্ট এ প্রাকটিক্যাল বিষয়গুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পার্ট- যখন আপনি একটি SEO প্রজেক্ট পাবেন, সেটা কিভাবে শুরু করতে পারেন। অর্থাৎ প্রথমে আমরা কী করব, তারপর কী ঘটবে তারপর কীভাবে পরিকল্পনা করব তা নিয়েই মূলত আমরা কথা বলবো।

কোথা থেকে আমরা SEO প্রজেক্ট পাবো?

প্রথমত আমরা আলোচনা করব এই যে SEO প্রজেক্ট পাবেন, সেটা কোথা থেকে পাবেন? 

দেখুন, আপনি যদি কোনো কোম্পানি তে কাজ করেন এবং সেই কোম্পানির ডিজিটাল মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিং এর SEO পার্ট টি আপনি পরিচালনা করেন এটি প্রথম পয়েন্ট হতে পারে। 

দ্বিতীয় পয়েন্ট হতে পারে, আপনার একটি ডিজিটাল মার্কেটিং বা SEO এনজেন্সিতে যুক্ত হয়েছেন যেখানে বিভিন্ন ধরণের প্রজেক্ট এ আসে। সেইগুলো প্রজেক্ট থেকে আপনাকে কমপ্লিট করার জন্য দিবে। এই ভাবে  আপনি প্রজেক্ট পেতে পারেন। 

তৃতীয়ত, আপনি ফ্রীলান্সিং করতে পারেন। এই সম্পর্কে আমি একটি কনটেন্ট নিয়ে আসবো শীঘ্রই। ব্যাক এ চলে আসা যাক- ফ্রীলান্সিং এর বিভিন্ন মার্কেট প্লেস এ একাউন্ট করে আপনি সেখান থেকে প্রজেক্ট পেতে পারেন। অথবা একটি ডামি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেটাতে প্রাকটিস প্রাকটিস করতে পারেন। 

আপনি যদি বাস্তব অভিজ্ঞতা নিতে পারেন, তাহলে আপনি এই সব থেকে project পাবেন।

কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন?

এই পার্ট এ আমরা কথা বলবো যখন আপনি একটি প্রজেক্ট পাবেন তখন আপনার প্লানিং কি হবে বা কোন বিষয় গুলো বুঝতে হবে বা কিভাবে শুরু করা যাই তা নিয়ে অলোচনা করবো। সুতরাং এই কনটেন্টটি বোঝার চেষ্টা করুন যা আপনাকে পরবর্তী একধাপ এগিয়ে রাখবে SEO প্রজেক্ট শুরু করার ক্ষেত্রে। 

যেসকল  বিষয় গুলো সবসময় খেয়াল রাখতে হয় তা নিচে দেয়া হলো-

  1. Understanding of buyer business
  2. Buyer Current website performance analysis
  3. keywords research
  4. Buyer Competitors analysis
  5. On-page Optimization, technical SEO, and off-page analysis
  6. Maintain the position by data analysis

Understanding of buyer business: সর্ব প্রথম আপনার গোল হবে সেটি হচ্ছে যখন কোনো প্রজেক্ট আপনি পাবেন তখন buyer এর বিসনেসকে বা ওয়েবসাইট niche কে ভালোভাবে বোঝা। অর্থাৎ সেই বিসনেস কিধরনের? সেই  বিসনেস এর প্রধান গোল কি? আপনার ক্লায়েন্ট অর্থাৎ সেই ব্যবসার মালিক আপনার কাছ থেকে কী আশা করেন এখন SEO বিশেষজ্ঞ হিসাবে? 

এই গুলোর বাইরেও বেশ কয়েকটি বিষয় আছে যেমন টার্গেট লোকেশন(কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন)। হয়তো কোনো ক্লায়েন্ট আপনার কাছে এসে বলে যে আমি একটি বিশেষ এরিয়াতে তার ওয়েবসাইট টি রাঙ্ক করাতে চায়- যেমন দিনাজপুর। আবার আরেক লোক এসে বলে যে আমাকে দুটি বিশেষ এরিয়াতে ওয়েবসাইট টি রাঙ্ক করতে হবে- যেমন রংপুর এবং দিনাজপুর। এছাড়াও আরেক লোক বলতে পারে যে আমি শুধু এই দুটো এরিয়াতে না, সারা বাংলাদেশ আমার ওয়েবসাইটটি রাঙ্ক করাতে চাই। অথবা আরেক লোক বলতে পারে আমার ওয়েবসাইট টি তো ব্লগিং ওয়েবসাইট, এবং সে চায় তার ওয়েবসাইট টি যেন সারাবিশ্বে রাঙ্কিং হয়। 

এই জন্যই মূলত টার্গেট লোকেশন প্রয়োজন হয় কোন ওয়েবসাইটকে একটি নির্দিষ্ট এরিয়াতে রাঙ্ক করাতে।

Buyer Current website performance analysis: Buyer এর বিজনেস  বোঝার সাথে সাথে আমাদের এটিও দেখতে হবে যে buyer এর ওয়েবসাইট এর বর্তমান পসিশন কি ধরণের। অর্থাৎ তার বর্তমান রাঙ্কিং পজিশন কি, কোন কোন keywords দ্বারা ইতিমধ্যেই তার ওয়েবসাইটটি রাঙ্কিং পেয়েছে, তার বর্তমান মান্থলি অর্গানিক ট্রাফিক কতগুলো, ইত্যাদি জানা(কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন)। 

আপনার buyer এর ওয়েবসাইট analysis করা হয় কারণ আপনি যখন তার প্রজেক্ট স্টার্ট করবেন এবং কীওয়ার্ড দ্বারা তাকে রাঙ্ক অর্জন, মান্থলি ট্রাফিক increase করে দিছেন তখন compare কিভাবে করবেন যে আপনি এই গুলো তাকে অর্জন করে দিয়েছেন বা এত পার্সেন্ট তাকে গ্রও করে দিছেন। 
প্রাথমিকভাবে, আপনাকে এটিও মাথায় রাখতে হবে যে buyer এর ওয়েবসাইট পারফরমেন্স analysis করা খুবই প্রযোজন। যখনই আপনি ভালো রেংকিং ভালো ট্রাফিক পজিশন নিয়ে আসবেন তখন আপনার কাছে পার্থক্য করার মত কিছু আছে। যখনই আমাদের বায়ারের বিজনেসে কমপ্লিট নলেজ অর্জন করতে পারি তখন আমার বুঝতে পারি সেই বিজনেস কি ধরণের, সেই বিজনেস এর প্রধান strong বিষয়বা পয়েন্ট কি, কিভাবে সেই বিজনেস এর প্লানিং করতে পারি বিশেষ করে SEO তে।

keywords research: ওয়েবসাইট পারফরমেন্স এর নেক্সট এ চলে আসে কিওয়ার্ড রিসার্চ। ওই বিসনেস রিলেটেড কীওয়ার্ড গুলো বের করা। এই জন্য আমি বলছিলাম টার্গেটেড লোকেশন এই ক্ষেত্রে খুব প্রয়োজন। কারণ টার্গেটেড লোকেশনকে মাথায় রেখে আমরা কীওয়ার্ড রিসার্চ করবো। কীওয়ার্ড রিসার্চ কি ভাবে করে এই সম্পর্কে আমি আগেই একটি কনটেন্ট লিখে রেখেছি আমার ব্লগ এ। ঘুরে আসতে পারেন আমাদের আনলিমিটেড কীওয়ার্ড রিসার্চ এর গাইডলাইন থেকে।

কীওয়ার্ড রিসার্চ করার পর প্রত্যেক কোম্পানির নিজস্ব বা প্রত্যেক ফ্রীলান্সারদের আলাদা প্রসেস ফলো করে। কেউ কেউ কীওয়ার্ড রিসার্চ করার পর ক্লায়েন্টকে কীওয়ার্ডগুলো(কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন) দেখতে বলে এবং সেখান থেকে ক্লায়েন্ট choose করে তাকে approved করে দেয়। এখানে আবার এমনটা নয় যে আপনি ৫০০ কীওয়ার্ড বের করছেন এবং সবগুলোই পাঠিয়ে দিলেন আপনার ক্লায়েন্টকে এবং সেখান থেকে তাকে বললেন আমাকে choose করে দাও। এটা করা যাবে না। আমরা করতে পারি আমাদের যেগুলা মনে হয় ভালো কীওয়ার্ড সেগুলাকে হাইলাইট করে আমরা তাকে পাঠাতে পারি এবং বলতে পারি যে হাইলাইট কিওয়ার্ডগুলো choose করে আমাকে অ্যাপ্রুভ করে দিন। কিন্তু কিছু এজেন্সি আছে যারা এটা করে না মানে হচ্ছে তারা নিজেরাই কীওয়ার্ড  বের করে এবং নিজেরাই সিলেকশন করে ক্লায়েন্ট এর জন্য যে কোনটা বেস্ট কীওয়ার্ড তার বিসনেস এর জন্য। তাহলে আমাদের তৃতীয় বিষয় হচ্ছে কিওয়ার্ড রিসার্চ।

Buyer Competitors analysis: যখনই কীওয়ার্ড রিসার্চ পার্ট শেষ হয় তখনই আমাদের যেতে হয় কম্পিটিটরদের এনালাইসিস করতে। ধরণ আমি একটি ওয়েবসাইট নিয়ে আসলাম এবং আপনাকে বললাম যে আমাকে ঢাকার মধ্যে ওয়েবসাইটটি রাঙ্ক করে দাও। এই ঢাকার মধ্যে এমন কোন বিসনেস আছে যা আমাদের বিসনেস এর সাথে যায় , তাদের আমাদের analysis করাটা খুবই প্রয়োজন। কারণ এই analysis থেকে আমাদের বেশ কয়েকটি বিষয় বের করতে হবে। যেমন:- তাদের দুর্বল পয়েন্ট গুলো কি এবং কোথায় তারা ভালো করতাছে ইত্যাদির রিপোর্ট থেকে আমাদের আইডিয়া নিতে হবে।

On-page Optimization, technical SEO, and off-page analysis: কম্পিটিটর এনালাইসিস করার পর আমরা আমাদের SEO এর প্রসেস শুরু করতে পারি বা শুরু করতে হবে। এই অংশে আমাদের অন পেজ অপটিমাইজেশন(কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন) এর কাজগুলো করতে হবে। মানে হচ্ছে কনটেন্ট গুলোকে প্রপার অপটিমাইজ করা, SEO এর বেস্ট প্রাকটিসগুলো আমাদের ওয়েবসাইট এ ইমপ্লিমেন্ট করতে হবে। এর সাথে সাথেই আমাদের ফোকাস রাখতে হবে টেকনিক্যাল SEO তে। মানে হচ্ছে ওয়েবসাইটের মধ্যে যদি কোন টেকনিক্যাল সমস্যা থাকে সে গুলোকে সলভ করা। 

এরপর আপনি যদি দেখেন অনপেজ এসইও এবং টেকনিকাল এসইও সবকিছু ঠিকঠাক। তারপর আপনি অফ পেজ এসইও শুরু করতে পারেন। এবার এই অংশে আপনি বিভিন্ন ধরনের হাই কোয়ালিটি ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারেন আপনার ক্লায়েন্ট এর সাইটের জন্য। হতে পারে এটা বিভিন্ন প্লাটফর্ম থেকে create করা। এইখানে অফ পেজ নিয়ে বেশি কথা বলতেছি না। 

কিন্তু আপনি চাইলে আপনার off page SEO এর ব্লগটি পড়ে আসতে পারেন। এই অংশে আমি অলোচনা করেছি অফ পেজ SEO এর ফ্যাক্টরগুলো নিয়ে, অফ পেজ কমন মিস্টেকগুলো নিয়ে, ইত্যাদি।

Maintain the position by data analysis: এরপর এগুলো সব শেষ হয়ে গেলে এবার আমরা চলে যাব রিপোর্টের এর দিকে। মানে হচ্ছে আপনি কতটুকু প্রসেস বা রাঙ্কিং এচিভ করছেন, কি কি এচিভ করছেন, কোন মাস এ কত ভিসিটর নিয়ে আসতে পারছেন, কত টুকু কোনভার্সন হয়েছে, এর জন্য আমরা ফোকাস করবো অ্যানালিটিকস এ। এরপর সেগুলোর উপর ভিত্তি করে আমাদের নেক্সট প্ল্যানিং করতে হবে এবং যেসব কীওয়ার্ড দ্বারা আমরা রেংকিং এচিভকরছি, সে গুলোকে ধরে রাখার জন্য কাজ চালিয়ে যাওয়া বা Maintain করা।  আমরা জানি যে এসইও শর্ট টার্ম জার্নি না, এটা লং টার্ম জার্নি। সুতরাং একবার কাজ করলেই যে দ্বিতীয়বার আর কাজ করবেন না সেটা না। তাই আমাদের আবার প্লানিং করে কাজ এ নামতে হবে। আপনাকে অবশ্যই আপনার ক্লায়েন্টকে বলতে হবে যে এটা  কন্টিনিউস প্রসেস যা আপনাকে চালিয়ে যেতে হবে সর্বদাই। 

এখানে আমি আপনাদের আউটলাইন দিসি যে কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করতে পারেন এবং বেস্ট রেজাল্ট দিতে পারেন আপনার ক্লায়েন্টকে। এই প্রসেসেটির বাইরেও আপনারা Moz .com এর প্রসেসটি ফলো করতে পারেন। তারা এই বিষয়ে অলরেডি তাদের কোর্স এ SEO Methodology নিয়ে আলোচনা করেছিল। আপনি তাদের টাও দেখতে পারেন যে কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন। আপনাদের জন্য SEO Methodology এর ভিডিও টি দিয়ে দিলাম গুগল ড্রাইভ এ।

By Blogger Ujjal

Ujjal is a professional blogger from Bangladesh. He has been working as a blogger for 3 years. He loves this sector and tries to publish different types of content.

2 thoughts on “কিভাবে SEO প্রজেক্ট শুরু করবেন”

Leave a Reply

Your email address will not be published.