কম্পিটিটর-এনালাইসিস

ধরুন, আপনি একজন এসইও এক্সপার্ট এবং একটি ওয়েবসাইটকে এসইও করতে চাচ্ছেন সার্চ ইঞ্জিন এ রেঙ্ক করার করার জন্য(কম্পিটিটর এনালাইসিস)। যখনই আপনি সেই ওয়েবসাইটের জন্য এসইও করতে যাবেন, তখনি আপনার প্রয়োজন হবে সেই ওয়েবসাইটের কম্পেটিটর এর ডাটা। মানে হচ্ছে আপনাকে সর্বপ্রথম কম্পিটিটরদের খুঁজে বের করতে হবে এবং তারপর তাদেরকে এনালাইসিস করতে হবে। আমাদের খুঁজে বের করতে হবে তাদের দুর্বল পয়েন্টগুলো এবং যা থেকে আমাদের ওয়েবসাইটকে তাদের থেকে অপ্টিমিজ করতে পারি। এই জন্য আমাদের জানতে হবে কম্পিটিটর এনালাইসিস কিভাবে করতে হয় এবং এই বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান থাকা আবশ্যক একজন বিগিনার হিসাবে। আর এই সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি করা হয় মূলত আপনার buyer এর বিজনেস বা কীওয়ার্ডগুলো এর উপর ভিক্তি করেই।

একটি ওয়েবসাইটকে রেঙ্ক করার জন্য কম্পিটিটরদের তথ্য গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কারণ আপনি যদি আপনার কম্পিটিটরদের বা তাদের তথ্য না জানেন তাহলে সেই ওয়েবসাইট ranking ক্ষেত্রে বিশেষ ভালো কিছু করতে পারবেন না। যখনই আপনি কম্পিটিটরদের জানবেন তখনি আপনার সিদ্ধান্তটা নিতে খুবই সহজ হবে। মানে হচ্ছে এরপরে আপনাকে সেই সাইট ranking এর জন্য কি করতে হবে বা কোন ধরনের পদক্ষেপ নিলে ভালো হবে ইত্যাদি জানতে পারবেন। সুতরাং কম্পিটিটরদের খুঁজে বের করে তাদেরকে ভালোভাবে এনালাইসিস করাটাও খুবই আবশ্যক। এর ফলে আমরা ভালো স্ট্রাটেজি তৈরি করতে পারবো সামনের পদক্ষেপ গুলো নেয়ার জন্য। আপনারা ইতিমধ্যে বুঝে গেছেন যে এই আর্টিকেলটি কিসের উপর হচ্ছে। আমরা মূলত কম্পিটিটর এনালাইসিস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

কম্পিটিটর এনালাইসিস কি?

কেমন হয় যদি এই বিষয়টি একটি উদাহরণ দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করি মানে হচ্ছে কম্পিটিটর এনালাইসিস বিষয়টি কি। চলুন তাহলে শুরু করা যাক-

ধরুন, এক জায়গায় যুদ্ধ লাগছে এবং আপনি সেই যুদ্ধে অংশগ্রহণ করবেন, মানে হচ্ছে যুদ্ধে যাবেন। আর যুদ্ধে যাওয়ার জন্য আপনি প্রস্তুত। এইখানে আপনাকে কোন দিকে ফোকাস রাখতে হবে? মানে আপনার কতটুকু শক্তি বা ক্ষমতা আছে তার দিকে নাকি আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীরা বা আপনার সাথে যারা লড়বে তারা কতটা শক্তিশালী। অবশ্যই আপনাকে ফোকাস রাখতে হবে আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে। তারা কতটা ভয়ঙ্কর বা শক্তিশালী। যখনই আপনার কাছে আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঠিক তথ্য থাকবে আর আপনি যদি সেইভবে প্রস্তুত হন লড়াই এর জন্য এবং প্রস্তুতি গ্রহণ  করার পর আপনি যদি সেই যুদ্ধে যান তাহলে সফল ভাবে বলা যায় যে, সেই যুদ্ধে জয় লাভ করার আপনার কাছে অনেকখানিই সম্ভব।

সুতরাং এই উদাহরণ থেকে আমরা বলতে পারি, যখনই আমার আমাদের কম্পিটিটর সঠিক তথ্য জানবো মানে তাদের দুর্বল পয়েন্ট, কতটুকু শক্তিশালী বা কোন জায়গায় তারা বেষ্ট ইত্যাদি এইসব বিষয়। সেই অনুযায়ী আপনার ওয়েবসাইট এর অথরিটি বিল্ড আপ, প্রপার অপ্টিমাইজ ইত্যাদি বিষয় গুলো করতে হবে। আর আপনার কম্পিটিটরদের এনালাইসিস এবং বাকি বিষয় গুলোর উপর ভিক্তি করে আপনাকে নতুন কৌশল তৈরি করতে হবে। সুতরাং আমরা এটি বলতে পারি যে আপনি যে সাইট নিয়ে এসইও করতে যাচ্ছেন সেই সাইট এর ভবিষ্যৎ কি হবে তা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনার কম্পিটিটরদের উপর।

আপনার কোনো প্রয়োজন কম্পিটিটরদের এনালাইসিস করা?

প্রতিটি ওয়েবসাইট এ SEO করতেই হয়। ভালোভাবে ভাবুন যে আমার কোনো ওয়েবসাইট এর জন্য SEO করি; আপনি বলবেন যে রাঙ্কিং করার জন্য। রাইট ! সুতরাং আমাদের সবার লক্ষ্য থাকে যে দিনশেষে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেন আমাদের ব্যবসাটা বৃদ্ধি পায়। এককথায় আমরা এটা বুঝতে পারি যে, রেঙ্কিং এর সাথে ব্যবসা বৃদ্ধি। আমরা আগেই বলেছি যে এসইওর কাজ শুরু করতে আমাদের কম্পিটিটরদের তথ্যগুলো লাগে। কোনো ??

তাদের দুর্বলতাগুলো এবং ভালো দিকগুলো জানার পরে আমরা যখন অন্য ওয়েবসাইট এর জন্য SEO করি তখন আমাদের অনেক কাজ কমে যাওয়ার সাথে সাথে ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে ব্যবসার বৃদ্ধি এবং সার্চ ইঞ্জিন এ রেঙ্কিং পাওয়ার সম্ভাবনাও অনেকখানি বেড়েই যায়। এটার মাধ্যমেও আমরা পরবর্তী স্টেপ গুলো নিতে পারবো আমাদের ওয়েবসাইট এর জন্য। সুতরাং আমাদেরকে এই বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে হবে যার মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই পরবর্তী কৌশল তৈরি করতে পারি। অতএব, আমরা একটু হলেও বুঝতে পারছি যে কতটুকু গুরুত্ব একটি ওয়েবসাইটের জন্য কম্পেটিটর এনালাইসিস করা। 

কিভাবে বের করবেন আপনার কম্পিটিটরদের?

আগেই বলা হয়েছে যে কম্পিটিটরদের এনালাইসিস করা হয় কতগুলো কীওয়ার্ড বা আপনার বিজনেস এর উপর ভিক্তি করে। তাই আমরা বোঝার চেষ্টা করবো কারা আপনার কম্পিটিটর? মনে করুন, আপনার কীওয়ার্ডটি হচ্ছে “SEO Expert in Bangladesh” ।

কম্পিটিটর এনালাইসিস সার্চ রেজাল্ট

যখন আমরা এই কীওয়ার্ড টি লিখে গুগল এ সার্চ করবো তখন গুগল আমাকে ডিফল্ট ১০ রেজাল্ট দেখাবে প্রথম পেজ এ। আর এই প্রথম পেজ থেকে আমাদের কম্পেটিটরদের খুঁজে বের করতে হবে। ওয়েবসাইট গুলো খুঁজে বের করতে আমরা কোনো ধরণের টুলস এর ব্যবহার করবো না। 

search result

এইখানে এই কীওয়ার্ড টি লিখে আমি সার্চ করছি এবং আমরা দেখতে পারতেছি যে অনেক গুলো পেজ এবং প্রতিটি পেজ এর মধ্যে ১০ টি রেজাল্ট আছে যা একটি সিস্টেমেটিক ওয়েতে আছে। এখানে একটি প্রশ্ন থেকেই যায় যে এখানে আমরা অনেকগুলো রেজাল্ট দেখতে পাচ্ছি। কিন্তু প্রথম পেজে এর রেজাল্ট গুলোর মধ্যে কোন গুলো আপনার কম্পেটিটর বা কোন ওয়েবসাইট গুলো? এই রেজাল্ট গুলোর মধ্যে কি সবাই আপনার কম্পেটিটর কিনা? যদি না হয় তাহলে কারা বা কোন ওয়েবসাইট গুলো? আমাদেরকে ভালোভাবে এটি বুঝতে হবে। 

প্রথমত আপনাকে সেই রেজাল্ট গুলো ওপেন করতে হবে এবং দেখতে হবে করা  আপনার একচুয়াল কম্পিটিটর এবং এরপর তাদের ওয়েবসাইটকে ধরে ধরে এনালাইসিস করতে হবে। আর আপনি যদি প্রথম না জানেন কোন ওয়েবসাইট গুলো আপনার কম্পেটিটর তাহলে আপনি তাদের এনালাইসিস করে আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য ভালো কিছু করতে পারবেন না। অতএব এই প্রসেস টি আপনাকে সম্পূর্ণ ভালোভাবে বুঝতে হবে যে আসলেই আপনার একচুয়াল কম্পিটিটর কোন ওয়েবসাইট গুলো।

একচুয়াল কম্পিটিটরদের বের করার জন্য আপনাকে সেই সার্চ ইঞ্জিন এর ১০টি রেজাল্ট ওপেন করতে হবে এবং দেখতে হবে যে কোন ওয়েবসাইট গুলো আপনার বিজনেস বা ব্যবসার সাথে যায়। বলতে গেলে, আপনার ওয়েবসাইট এর “নিশ” বা বিজনেস যেরকম, ঠিক তেমন ভাবেই সেই রেজাল্ট গুলোর ওয়েবসাইটকে একই নিশ বা বিজনেস হতে হবে। এই ওয়েতেই আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর একচুয়াল কম্পিটিটরদের বের করতে পারবেন সার্চ ইঞ্জিন থেকে। 

এই প্রসেস টি ভালোভাবে ক্লিয়ার করার জন্য আমার প্রাকটিক্যাল ভাবে কিছু ওয়েবসাইট এনালাইসিস করতে পারি। চলুন শুরু করা যাক-

যেহেতু আমরা আগে একটি কীওয়ার্ড। উল্লেখ করেছি যেমন “SEO Expert in Bangladesh” । তাই এই কীওয়ার্ড দ্বারা আমরা কম্পেটিটরদের খুঁজে বের করবো। মনে করেন, আপনি একজন SEO এক্সপার্ট এবং আপনি চাচ্ছেন যে এই কীওয়ার্ড দিয়ে রেঙ্ক করতে তাই আমাদের সর্বপ্রথম প্রয়োজন কম্পেটিটর এনালিসিস করার। 

এটির জন্য আমাদের গুগল এ সার্চ করতে হবে এটি লিখে “SEO Expert in Bangladesh” । এবং আমরা ১০ টি রেজাল্ট দেখতে পারছি। এখন আমাদের ওপেন করতে হবে ওয়েবসাইট গুলো। এর মধ্যে আমরা প্রথম কয়েকটি ওয়েবসাইট দেখবো যে তারা আমাদের কম্পেটিটর কি না।

  • আমরা প্রথম “mdfarukkhan” নামে একটি ওয়েবসাইট দেখতে পারছি। ভালোভাবে দেখলেই আমরা দেখতে পাই তিনি একজন এসইও এক্সপার্ট এবং তিনি এসইও সার্ভিস প্রদান করেন। যেহেতু আমরাও একজন SEO এক্সপার্ট এবং SEO সার্ভিস প্রদান করি তাই বলা যায় যে এই ওয়েবসাইটটি আমাদের কম্পেটিটর।  
কম্পিটিটর এনালাইসিস
  • দ্বিতীয় ওয়েবসাইটটি আমরা দেখতে পাই  একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস। সেটি হচ্ছে “upwork” । আমরা যেহেতু আগে থেকেই জানি যে এটি একটি মার্কেটপ্লেস যেখানেই বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সাররা তারা তাদের সার্ভিস প্রোভাইড করে। এখন আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতে পারে এটা কি আমাদের কম্পেটিটর? অবশ্যই না! কারণ এটি আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে কোন ধরনের মিল নেই। মানে যেহেতু আমরা আমাদের ওয়েবসাইট একটি পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট এবং SEO সার্ভিস প্রোভাইড করে তাই “upwork” আমাদের কম্পেটিটর না। 
কম্পিটিটর এনালাইসিস সার্চ রেজাল্ট
  • তৃতীয়ত সেটি আমরা দেখতে পাই “digitalseoland” । যেটি কিনা একটি পোর্টফোলিও এবং SEO সার্ভিস প্রধান করে এমন একটি ওয়েবসাইট। সুতরাং আমরা বলতে পারি এটি আমাদের কম্পেটিটর।
কম্পিটিটর এনালাইসিস সার্চ রেজাল্ট

কোন ওয়েবসাইটগুলো আপনার কম্পেটিটর না 

আমি জানি যখনই আপনারা কীওয়ার্ড লিখে সার্চ করি, মানে কম্পেটিটরদের খোঁজার জন্য তখন বিভিন্ন ধরনের রেজাল্ট চলে আসে। এইগুলো মধ্যে যদি এমন কোনো আমরা ওয়েবসাইট দেখতে পাই যেগুলো আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথে ম্যাচ বা আমাদের সাইট এর সাথে যায় না সেগুলো ওয়েবসাইট আমাদের কম্পেটিটর না নিচে তাদের এড্রেস দেয়া হলো :

  • Online marketplace Site
  • Question/Answer Site
  • Social Media Site
  • Wikipedia
  • Directory Site
  • Brand Site
  • Web 2 Site, etc.

এক্ষেত্রে আমাদের একটু বুঝে শুনে ওয়েবসাইটগুলো ওপেন করতে হবে এবং দেখতে হবে যে এগুলো আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথে যায় কিনা।

আমরা কিভাবে একটি ওয়েবসাইটের পেজকে এনালাইসিস করতে পারি?

কম্পেটিটর এনালাইসিস করতে আমি সব সময় একটি সাজানো “কম্পেটিটর এনালাইসিস টেমপ্লেট” ব্যবহার করি। আর আজ আমি এই টেমপ্লেট এর মধ্যে যা কিছু আছে তা আমি এই কনটেন্ট এ বোঝানোর চেষ্টা করবো এবং আপনারদের সাথে এই টেমপ্লেট টি শেয়ার করবো। আমি এটিকে ৩টি ভাগ এ ভাগ করেছি। ১. General Analysis, ২. Onpage SEO Analysis এবং ৩.  Backlink Analysis । এখন আমরা বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো:-

  • General Analysis: এই General Analysis এর মধ্যে আমি কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট রাখছি যা আমাদের এনালাইসিস করতে খুবই আবশ্যক। এই গুলো হলো:-
  • Competitors URL
  • Competitors PA
  • No. Of Site Indexed Page
  • Keyword in Title
  • Keyword in URL
  • Keyword in Description
  • Keyword Prominence
  • Keyword Proximity
  • Social Signal

Competitors URL: আমরা এর মানে জানি যে এটি দ্বারা কম্পেটিটর এর ওয়েবসাইট এর এড্রেস বোঝায়। যেগুলো আমরা একটি গুগল শিট এ নিয়ে রাখবো। 

Competitors PA: এটি দ্বারা 11আমরা বুঝি ওয়েবসাইট এর পেজ অথরিটি। মানে কম্পিটিটরদের যে পেজ টি রেঙ্ক করছে তার পেজ অথরিটি কত বা পেজ এর শক্তি কতটুকু। 

No. Of Site Indexed Page: এটার মাধ্যমে আমরা বুঝি একটি ওয়েবসাইট এর কতগুলো পেজ ইনডেক্স হয়েছে তার একটি  সংখ্যা।

Keyword in Title: আমরা জানি টাইটেল হচ্ছে একটি বেস্ট জায়গা যেখানে আমাদের কীওয়ার্ডটি  রাখতে হবে। যদি কম্পেটিটর তার ওয়েবসাইট এর টাইটেল এ কীওয়ার্ড না রাখে তাহলে এটি তার দুর্বল পয়েন্ট। 

Keyword in URL: এটি একটি বেস্ট জায়গা যেখানে কীওয়ার্ড রাখা আবশ্যক। আমাদের চেক করতে হবে যে আমাদের কম্পেটিটর দের সেইপেজ গুলোর URL এ কীওয়ার্ড আছে কিনা। 

Keyword in Description: ডেসক্রিপশন ও একটি বেস্ট জায়গা যেখানে আমাদের কীওয়ার্ড রাখা দরকার। আমাদের কম্পেটিটরদের ডেসক্রিপশন চেক করতে হবে যে তাদের এই জায়গায় কীওয়ার্ড আছে কি না।

Keyword Prominence: এটি দ্বারা এটি বোঝায় যে কীওয়ার্ড যদি আপনার টাইটেল এর জন্য প্রথমের দিকে থাকে তাহলে আমরা বলতে পারি Keyword Prominence ঠিক আছে। 

Keyword Proximity: এটি দ্বারা আমরা বুঝি সম্পূর্ণ আমাদের কীওয়ার্ড টাইটেল এর মধ্যে আছে কিনা একসাথে। যদি একসাথে না থাকে তাহলে Keyword Proximity ঠিক নাই। 

Social Signal: Social Signal দ্বারা বুঝি আমাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে কত গুলো লাইক, ফলোয়ার আছে তার কাউন্ট। 

আগের কনটেন্ট গুলো পড়তে পারেন:-
সার্চ ইঞ্জিন রেঙ্কিং ফ্যাক্টর
লিংক হুইল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা

  • Onpage SEO Analysis: আমরা জানি অনপেজ হচ্ছে ওয়েবসাইট এর ভেতরের কাজগুলো। যেমন: ইউআরএল ফ্রেন্ডলি, মেটা ট্যাগ, রোবট.টেক্সট , সাইটম্যাপ, etc. চলুন দেখা যাক-
  • Site URL
  • Url characters
  • Title characters
  • Meta description characters
  • Images ALT
  • Sitemap
  • Robot Txt
  • Google Analytics
  • Google search console

Site URL: Site URL দ্বারা আমরা বুঝি ওয়েবসাইটের ইউ আর এল গুলো SEO ফ্রেন্ডলি কিনা।

Url and Title characters: আমরা জানি ইউআরএল এর characters ২৫ এর বেশি ভালো না আর টাইটেল এর ৫০-৬০। যদি এটি না থাকে তাহলে URL এবং টাইটেল তাদের দুর্বল পয়েন্ট।

Meta description characters: মেটা ডেসক্রিপশন এর characters 150-১৬০ এর বেশি ভালো না।  তাই আমাদের এটি চেক করতে হবে। 

Images ALT: এটার মানে হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটে ইমেজগুলো যদি ALT না থাকে তাহলে গুগোল আপনার ইমেজগুলোকে চিনতে পারবেনা। এইটার জন্য আমাদের ALT দিতে হয়। আর এটিও চেক করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। 

Robot Txt: সাইটম্যাপ দ্বারা সার্চ ইঞ্জিনকে নির্দেশ দেয়া হয় যে কোন পেজ গুলো সে ইনডেক্স করবে। এটি আমাদের চেক করতে হয় কম্পেটিটরদের ওয়েবসাইট এর  সাইটম্যাপ।

Sitemap: এটি একটি ওয়েবসাইট এর সূচিপত্র হিসেবে কাজ করে। এটিও আমাদের কম্পিটিটরদের চেক করা দরকার। 

Google Analytics and Google search console: এই দুটো বিষয় আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথে কানেক্ট আছে কি না তা চেক করতে হবে। এই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

এই সবগুলো বিষয় কয়েকটি মাধ্যমে করতে পারি। তবে এটি আমরা এক্সটেনশন এর মাধ্যমে করতে পারবো। এই হলো  quake extension অথবা seositecheckup ।

  •  Backlink Analysis: সর্বশেষ হচ্ছে Backlink Analysis। এই অংশে আমরা আমাদের কম্পেটিটরদের ব্যাক লিঙ্ক গুলো খুঁজে বের করি। এটি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের টুলস ব্যবহার করি যেমন moz, ubersuggest, ahrefs, etc। এই টুলস গুলো ব্যবহার করে আপনি খুব সহজে আপনার কম্পিটিটরদের ভালো ব্যাকলিংক গুলো খুঁজে বের করতে পারেন। এই কম্পিটিটরদের ব্যাকলিংক গুলোতে আপনিও ব্যাকলিংক করতে পারেন আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য। যা আপনার সাইটকে আরো শক্তিশালী করে তুলবে।

আজ এখান থেকেই এবং এই ছিল মূলত কম্পিটিটর এনালাইসিস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা। ভালো থাকবেন।

By Blogger Ujjal

Ujjal is a professional blogger from Bangladesh. He has been working as a blogger for 3 years. He loves this sector and tries to publish different types of content.

Leave a Reply

Your email address will not be published.